প্রশ্নঃ ঢাবি অধিভুক্ত সাত কলেজগুলো কি কি ?

উত্তরঃ ঢাবি অধিভুক্ত ৭ কলেজগুলো হলোঃ

  • ১)ঢাকা কলেজ।
  • ২)ইডেন মহিলা কলেজ।
  • ৩)সরকারি তিতুমীর কলেজ।
  • ৪)বেগম বদরুন্নেসা কলেজ।
  • ৫)কবি নজরুল কলেজ।
  • ৬)সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ।
  • ৭)সরকারি বাঙলা কলেজ।

প্রশ্নঃ সাত কলেজে ভর্তি হতে কি করতে হয়?

উত্তরঃ সাত কলেজে ভর্তি হতে ‘ভর্তি পরীক্ষা’ দিতে হয়।

প্রশ্নঃ কারা ভর্তি পরীক্ষা দিতে পারবে?

-উত্তরঃ ২০২১ সালে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া সকল শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষার্থী ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে।

প্রশ্নঃ ভর্তি পরীক্ষার যোগ্যতা কি?

-উত্তরঃ তিনটি অনুষদে অধীনে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে,

  • ◑ বিজ্ঞান অনুষদের জন্যে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকসহ জিপিএ ৭.০০
  • ◑ ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের জন্যে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকসহ জিপিএ ৬.৫০
  • ◑ মানবিক অনুষদের জন্যে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকসহ জিপিএ ৬.০০

প্রশ্নঃ ভর্তি পরীক্ষার মানবন্টন কি?

-উত্তরঃ বহুনির্বাচনি প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিটি অনুষদে ১০০ নাম্বারের বহুনির্বাচনি প্রশ্নে পরীক্ষা হয়ে থাকে।[প্রতিটি প্রশ্নের নাম ১ নাম্বার]নিম্নে মানবন্টন উল্লেখ করা হলঃ

  • ◑ বিজ্ঞান অনুষদপদার্থ বিজ্ঞান -২৫রসায়ন -২৫ উচ্চতর গনিত -২৫জীববিজ্ঞান-২৫(চতুর্থ বিষয়ের পরিবর্তে বাংলা/ ইংরেজি বিষয়ে পরীক্ষা দিতে পারবেন)
  • ◑ ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদবাংলা-২০ইংরেজি -২০হিসাববিজ্ঞান-২০ব্যবসায় নীতি ও প্রয়োগ -২০মার্কেটিং/ ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং-২০
  • ◑ মানবিক অনুষদবাংলা -২৫ইংরেজি-২৫সাধারন জ্ঞান-৫০

প্রশ্নঃ ১০০ নম্বরের বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তরের জন্যে সময় থাকবে কত?

-উত্তরঃ ৬০ মিনিট বা ১ ঘন্টা।

প্রশ্নঃ বহুনির্বাচনি পরীক্ষায় কি পাশ/ফেল আছে?

-উত্তরঃ অবশ্যই ৪০% এর কম নাম্বার হলে আপনি অনুত্তীর্ণ বলে বিবেচিত হবেন। (বিষয়ভিত্তিক আলাদা পাশ নেই)

প্রশ্নঃ  কোন নেগেটিভ মার্কিং আছে কি?

-উত্তরঃ না নেই।

প্রশ্নঃ  সাত কলেজে কি সেকেন্ড টাইম আছে?

-উত্তরঃ না।

প্রশ্নঃ মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকের জিপিএ থেকে কোন মার্ক যুক্ত হয় কি?

-উত্তরঃ অবশ্যই ২০ নাম্বার যুক্ত হয়।কাজেই, ভর্তি পরীক্ষা মোট নাম্বার ( ১০০= ভর্তি পরীক্ষা + ২০= মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকের জিপিএ)

প্রশ্নঃ আবেদন ফি?

-উত্তরঃ আবেদন ফি ৭৫০ টাকা।

প্রশ্নঃ  অনুষদ/বিভাগ পরিবর্তন করা যাবে কি?

-উত্তরঃ না । স্ব স্ব ইউনিট থেকে ভর্তি পরিক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে।

প্রশ্নঃ সাত কলেজে ভর্তি হলে কি নিয়মিত ক্লাস করতে হয়?

-উত্তরঃ অবশ্যই।◑ উপস্থিতি ৭৫% থাকতে হবে।◑ যদি উপস্থিতি ৬৫-৭৪% হয় তাহলে ১৫০০ টাকা জরিমানা দয়ে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হয়।◑ যদি উপস্থিতি ৬৪% কম হয় তাহলে পরীক্ষায় বসতে পারবে না।

প্রশ্নঃ সাত কলেজে কি ডিগ্রি ভর্তি হওয়া যায়?

-উত্তরঃ না। ২০১৮ সাল থেকে ডিগ্রি বা পাস কোর্স বন্ধ।

প্রশ্নঃ সাত কলেজে কি ইচ্ছে মতো কলেজ ভর্তির চয়েজে দিতে হয়?

-উত্তরঃ হ্যাঁ। প্রত্যেক কলেজের জন্যে আলাদা আলাদা চয়েজ দিতে হয় না। তবে অবশ্যই ছেলে হলে আপনি ইডেন মহিলা কলেজ এবং বেগম বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজে আবেদন করতে পারবেন না।এবং মেয়ে হলে অবশ্যই ঢাকা কলেজে আবেদন করতে পারবেন না।

প্রশ্নঃ সাত কলেজের আবাসিক হল/ছাত্রাবাস সর্ম্পকে জানতে চাই?

-উত্তরঃ সাত কলেজের ছয়টি কলেজেই একাধিক আবাসিক হল/ছাত্রাবাস রয়েছে।ঢাকা কলেজে ৮টি ইডেন মহিলা কলেজে ৬ টিসরকারি তিতুমীর কলেজে ৩ টিবেগম বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজে ১ টিসরকারি বাঙলা কলেজে ১ টিকবি কাজী নজরুল ইসলাম সরকারি কলেজে ১ টিসরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজের হল নাই।

প্রশ্নঃ সাত কলেজের পরিবহন ব্যবস্থা সর্ম্পকে জানতে চাই?

-উত্তরঃ সাত কলেজের ছয়টি কলেজেই শিক্ষক শিক্ষার্থীদের জন্যে একাধিক বাস হয়েছে।ঢাকা কলেজে ৮টি ইডেন মহিলা কলেজে ৪ টিসরকারি তিতুমীর কলেজে ৫ টিবেগম বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজে ২ টিসরকারি বাঙলা কলেজে ১ টিকবি কাজী নজরুল ইসলাম সরকারি কলেজে ২ টিসরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজের বাস নাই।