প্রশ্ন ১: নতুন আবেদনের সময় “উচ্চমাধ্যমিক/মাধ্যমিকের ফলাফল পাওয়া যায়নি” মেসেজ দেখাচ্ছে। এক্ষেত্রে করণীয় কি?

উত্তরঃ নতুন আবেদনের সময় আপনার উচ্চমাধ্যমিক/সমমান এবং মাধ্যমিক/সমমান এর ৬ ডিজিটের রোল নম্বর (ইংরেজিতে) সঠিকভাবে প্রদান করুন। তারপরও সমস্যা হলে জরুরী যোগাযোগ নম্বরে যোগাযোগ করুন।

প্রশ্ন ২: নতুন আবেদনের সময় উচ্চমাধ্যমিক ও মাধ্যমিকের “প্রার্থীর /প্রার্থীর পিতা/ প্রার্থীর মাতার নামে মিল নাই” মেসেজ দেখাচ্ছে। এক্ষেত্রে করণীয় কি?

উত্তরঃ আবেদনকারীকে তার ব্যক্তিগত তথ্য ( নিজ নাম / পিতার নাম/ মাতার নাম) পরিবর্তনের জন্য নামের বানান সংশোধনীর আবেদন বাটন ক্লিক করে নির্দিষ্ট তথ্য প্রদান সাপেক্ষে সংশ্লিষ্ট মাধ্যমিক/ উচ্চমাধ্যমিক বোর্ড বরাবর আবেদনের প্রমাণপত্র, উচ্চমাধ্যমিক/সমমান এবং মাধ্যমিক/সমমান এর রেজিস্ট্রেশন কার্ড, ট্রান্সক্রিপ্ট এর স্ক্যান কপি আপলোড করে আবেদন সম্পন্ন করতে হবে। যদি নামের বানান সংশোধনীর আবেদন বাটন না পাওয়া যায় তবে জরুরী যোগাযোগ নম্বরে যোগাযোগ করতে হবে।

প্রশ্ন ৩: নতুন আবেদনের সময় “রেজাল্ট অনুযায়ী আপনার ন্যূনতম যোগ্যতা অর্জন হয় নাই” মেসেজ দেখাচ্ছে। এক্ষেত্রে করণীয় কি?

উত্তরঃ আবেদনকারীর মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিকে বোর্ড থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী উচ্চমাধ্যমিক/সমমান এবং মাধ্যমিক/সমমান এর ফলাফল অনুযায়ী কোন ইউনিটে ভর্তির ন্যূনতম যোগ্যতা নেই । এক্ষেত্রে আবেদনকারীর ফলাফল পরিবর্তন হয়ে থাকলে সেই পরিবর্তনের প্রমাণপত্র, উচ্চমাধ্যমিক/সমমান এবং মাধ্যমিক/সমমান এর রেজিস্ট্রেশন কার্ড, ট্রান্সক্রিপ্ট এর কপিসহ [email protected] ইমেইলে পাঠাতে হবে এবং জরুরী যোগাযোগ নম্বরে যোগাযোগ করতে হবে।

প্রশ্ন ৪: আমার নিজস্ব কোন মোবাইল ফোন নেই এক্ষেত্রে আমার করনীয় কি?

উত্তরঃ আবেদন করা হয়নি এমন একটি মোবাইল নম্বর দিয়ে নতুন আবেদন করা যাবে । যেহেতু, ভবিষ্যতে ভর্তি সংক্রান্ত সকল কার্যক্রমের জন্য মোবাইল নম্বরটি ব্যবহৃত হবে, সুতরাং, নিজস্ব মোবাইল নম্বর না থাকলে পিতা/ মাতা / নিকটস্থ কারো মোবাইল নম্বর ব্যবহার করা বাঞ্চনীয়।

প্রশ্ন ৫: আমি বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়/ DIBS থেকে অধ্যয়ন করেছি। কিন্তু আবেদন করতে পারছি না।

উত্তরঃ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়/DIBS থেকে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের আবেদনের তারিখ পরবর্তীতে ওয়েবসাইটের মাধ্যমে জানিয়ে দেয়া হবে। তবে নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই সম্পূর্ণ আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে।

প্রশ্ন ৬: “আবেদনকারীর ন্যূনতম যোগ্যতা যাচাই” এর সময় উচ্চমাধ্যমিক/সমমান এবং মাধ্যমিক/সমমান এ প্রাপ্ত জিপিএ ভূল দেখাচ্ছে। এক্ষেত্রে করনীয় কি?

উত্তরঃ আবেদনকারীর মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিকে বোর্ড থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী উচ্চমাধ্যমিক/সমমান এবং মাধ্যমিক/সমমান এর ফলাফল অনুযায়ী যে সকল ইউনিটে আবেদনের ন্যূনতম যোগ্যতা অর্জন করেছে শুধুমাত্র সে সকল ইউনিটসমূহ দেখানো হয়েছে। এক্ষেত্রে আবেদনকারীর ফলাফল পরিবর্তন হয়ে থাকলে সেই পরিবর্তনের প্রমাণপত্র, উচ্চমাধ্যমিক/সমমান এবং মাধ্যমিক/সমমান এর রেজিস্ট্রেশন কার্ড, ট্রান্সক্রিপ্ট এর কপিসহ [email protected] ইমেইলে পাঠাতে হবে এবং জরুরী যোগাযোগ নম্বরে যোগাযোগ করতে হবে।

প্রশ্ন ৭: আবেদন যোগ্য সকল ইউনিট প্রোফাইলে দেখাচ্ছে না। এক্ষেত্রে করনীয় কি?

উত্তরঃ আবেদনকারীর মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিকে বোর্ড থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী উচ্চমাধ্যমিক/সমমান এবং মাধ্যমিক/সমমান এর ফলাফল অনুযায়ী যে সকল ইউনিটে আবেদনের ন্যূনতম যোগ্যতা অর্জন করেছে শুধুমাত্র সে সকল ইউনিটসমূহ দেখানো হয়েছে। এক্ষেত্রে আবেদনকারীর ফলাফল পরিবর্তন হয়ে থাকলে সেই পরিবর্তনের প্রমাণপত্র, উচ্চমাধ্যমিক/সমমান এবং মাধ্যমিক/সমমান এর রেজিস্ট্রেশন কার্ড, ট্রান্সক্রিপ্ট এর কপিসহ [email protected] ইমেইলে পাঠাতে হবে এবং জরুরী যোগাযোগ নম্বরে যোগাযোগ করতে হবে।

প্রশ্ন ৮: অন্য একটি মোবাইল নম্বর দিয়ে আমার নামে আবেদন করা হয়েছে । এক্ষেত্রে করণীয় কি?

উত্তরঃ অন্য মোবাইল নম্বরটি যদি আপনার হয়ে থাকে তাহলে সেই মোবাইল নম্বর ব্যবহার করে লগইন করুন। অন্যথায় আপনার নিজ মোবাইল নম্বর ব্যবহার করে আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করুন।

প্রশ্ন ৯: “আবেদনকারীর ন্যূনতম যোগ্যতা যাচাই” হয়েছে কিন্তু মোবাইল নম্বর ভেরিফিকেশন সম্পন্ন হয়নি। এক্ষেত্রে করনীয় কি?

উত্তরঃ জরুরী যোগাযোগ নম্বরে যোগাযোগ করুন।

প্রশ্ন ১০: মোবাইল নম্বর যাচাই করার সময় পাসওয়ার্ড পাইনি। এক্ষেত্রে করনীয় কি?

উত্তরঃ আবেদনকারী মোবাইল নম্বর নিশ্চিত করার পর সেই নম্বরে S.M.S এর মাধ্যমে ৬ ডিজিটের পাসওয়ার্ড প্রেরণ করা হবে। যদি আবেদনকারীর মোবাইলে পাসওয়ার্ড না যায়, তবে তিন মিনিট পর “পুনরায় পাসওয়ার্ডের জন্য অনুরোধ করুন” বাটনে প্রেস করতে হবে।

প্রশ্ন ১১: যে নম্বর দিয়ে প্রোফাইল তৈরি সেই মোবাইল নম্বর বন্ধ হয়ে গেছে। এক্ষেত্রে করণীয় কি?

উত্তরঃ সংশ্লিষ্ট মোবাইল অপারেটর থেকে সিম উত্তোলন করুন অথবা নতুন মোবাইল নম্বর দিয়ে আবেদন করুন, অথবা জরুরী যোগাযোগ নম্বরে যোগাযোগ করুন।

প্রশ্ন ১২: যে মোবাইল নম্বর দিয়ে প্রোফাইল তৈরি সেই মোবাইল নম্বর পরিবর্তন করতে চাই। এক্ষেত্রে করণীয় কি?

উত্তরঃ মোবাইল নম্বর পরিবর্তনযোগ্য নয়।

প্রশ্ন ১৩: আমি যে মোবাইল নম্বর দিয়ে আবেদন করেছি, সেটা ভূলে গিয়েছি। এক্ষেত্রে করণীয় কি?

উত্তরঃ অনুসন্ধান ট্যাব এ গিয়ে মোবাইল নম্বর পুনরুদ্ধার লিংক এ ক্লিক করে প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে মোবাইল নম্বর পুনরুদ্ধার করতে হবে।

প্রশ্ন ১৪: আমি পাসওয়ার্ড হারিয়ে ফেলেছি। এক্ষেত্রে করণীয় কি?

উত্তরঃ অনুসন্ধান ট্যাব এ গিয়ে পাসওয়ার্ড পুনরুদ্ধার লিংক এ ক্লিক করে প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে পাসওয়ার্ড পুনরুদ্ধার করতে হবে।

প্রশ্ন ১৫: প্রোফাইল তৈরি হবার কত দিনের ভিতর ফি প্রদান সম্পন্ন করতে হবে?

উত্তরঃ ১৬ জুন, ২০২২ রাত ১১:৫৯ টা এর ভিতর বিকাশ/ রকেট পার্সোনাল একাউন্ট থেকে ফি প্রদান সম্পন্ন করতে হবে।

প্রশ্ন ১৬: আমি কি যে কোন নম্বর দিয়ে ফি প্রদান করতে পারব?

উত্তরঃ ১৬ জুন, ২০২২ রাত ১১:৫৯ টা এর ভিতর যেকোন বিকাশ/ রকেট পার্সনাল একাউন্ট থেকে ফি প্রদান সম্পন্ন করা যাবে ।

প্রশ্ন ১৭: আমি ফি প্রদান করতে পারছি না। এক্ষেত্রে করণীয় কি?

উত্তরঃ ১৬ জুন, ২০২২ রাত ১১:৫৯ টা এর ভিতর বিকাশ/ রকেট পার্সনাল একাউন্ট থেকে পর্যাপ্ত ব্যলেন্স রেখে ফি প্রদান করতে হবে। যদি তার পরও ফি প্রদান করা না যায়, তবে জরুরী নম্বরে যোগাযোগ করতে হবে।

প্রশ্ন ১৮: ফি প্রদানের সময় প্রশ্নপত্রের ভাষা নির্বাচনে ভূল করেছি। এক্ষেত্রে করণীয় কি?

উত্তরঃ আপনার প্রোফাইলে login করে ভাষা পরিবর্তনের জন্য ১৬ জুন, ২০২২ রাত ১১:৫৯ টা এর ভিতর আবেদন করুন। অন্যথায় জরুরী নম্বরে যোগাযোগ করতে হবে।

প্রশ্ন ১৯: আবেদন ফি প্রদানের জন্য আমার পেমেন্ট একাউন্টের প্রকৃতি কেমন হতে হবে?

উত্তরঃ আবেদন ফি অবশ্যই পার্সনাল একাউন্ট থেকে পরিশোধ করতে হবে। কোন রকম এজেন্ট একাউন্ট থেকে আবেদন ফি পরিশোধ করা যাবে না।

প্রশ্ন ২০: রকেট-এর মাধ্যমে টাকা জমাদানের প্রক্রিয়া কি?

উত্তর: রকেট-এর মাধ্যমে টাকা জমাদানের প্রক্রিয়া নিম্নরূপঃ

  1. প্রথমে স্ক্রিনে রকেট একাউন্টের নম্বর ও পিন দিন এবং “SUBMIT” বাটনে ক্লিক করে পরবর্তী ধাপে যেতে হবে।
  2. এরপর রকেট ঐ একাউন্ট নম্বরে এসএমএস এর মাধ্যমে একটি Security কোড পাঠাবে। কোডটি পেমেন্ট স্ক্রিনে দিয়ে “GO” বাটন ক্লিক করে পরবর্তী ধাপে যেতে হবে।
  3. পেমেন্ট সফল হলে সাথে সাথেই একটি confirmation SMS পাঠানো হবে। প্রোফাইল থেকে “জমা রশিদ” এ ক্লিক করে money receipt প্রয়োজনে ডাউনলোড করা যাবে। এই স্লিপটি কোনভাবেই প্রবেশপত্র নয়, শুধুমাত্র আবেদনকারীর টাকা জমাদানের রশিদ।

প্রশ্ন ২১: বিকাশ -এর মাধ্যমে টাকা জমাদানের প্রক্রিয়া কি?

উত্তর: বিকাশ-এর মাধ্যমে টাকা জমাদানের প্রক্রিয়া নিম্নরূপঃ

  1. প্রথমে স্ক্রিনে বিকাশ একাউন্টের নম্বর দিতে হবে এবং শর্তাবলিতে সম্মতি দিয়ে “CONFIRM” বাটনে ক্লিক করে পরবর্তী ধাপে যেতে হবে।
  2. বিকাশ ঐ একাউন্ট নম্বরে এসএমএস এর মাধ্যমে ৬ সংখ্যার একটি ভেরিফিকেশন কোড পাঠাবে। কোডটি পেমেন্ট স্ক্রিনে দিয়ে পরবর্তী ধাপে যেতে হবে।
  3. এরপর বিকাশ একাউন্টের পিন দিয়ে পেমেন্ট সম্পন্ন করতে হবে। পেমেন্ট সফল হলে সাথে সাথেই একটি confirmation SMS পাঠানো হবে। প্রোফাইল থেকে “জমা রশিদ” এ ক্লিক করে money receipt প্রয়োজনে ডাউনলোড করা যাবে। এই স্লিপটি কোনভাবেই প্রবেশপত্র নয়, শুধুমাত্র আবেদনকারীর টাকা জমাদানের রশিদ।

প্রশ্ন ২২: একটি পার্সনাল একাউন্ট (বিকাশ/রকেট) থেকে একাধিক ইউনিটের আবেদন ফি জমা দিতে পারবো কি না?

উত্তরঃ হ্যাঁ পারবেন। একই বিকাশ/রকেট একাউন্ট থেকে বিরতি (ন্যূনতম ৩ মিনিট) সাপেক্ষে একাধিক আবেদন ফি পরিশোধ করা যাবে।

প্রশ্ন ২৩: একটি ইউনিটে আবেদনের সময় আমার একাউন্ট থেকে একাধিকবার টাকা কেটে নেওয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে আমার করণীয় কি?

উত্তরঃ উপযুক্ত প্রমাণ (SSC/HSC Transcript, Transaction ID/Screenshot, Account Number, Contact Number) দিয়ে [email protected] ইমেইলে যোগাযোগ করুন। জরুরী নম্বরে যোগাযোগ করতে হবে।

প্রশ্ন ২৪: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে ১ম পর্ব স্নাতক সম্মান শ্রেণীতে ভর্তির জন্য আমি ১৬ জুন, ২০২২ রাত ১১:৫৯ টা তারিখের মধ্যে আবেদন ফি প্রদান করতে পারিনি। এই ক্ষেত্রে আমার ফি প্রদানের আর কোন সুযোগ আছে কিনা?

উত্তর: ১৬ জুন, ২০২২ রাত ১১:৫৯ টা মিনিটের পর নতুন করে আর কোন প্রোফাইল তৈরি করা যাবেনা। ধন্যবাদ।

প্রশ্ন ২৫: আমি ভূল ইউনিটে ফি প্রদান করে ফেলেছি । এক্ষেত্রে করণীয় কি?

উত্তরঃ দুঃখিত। এক ইউনিটে প্রদানকৃত ফি পরিবর্তন/ফেরতযোগ্য নয়।

প্রশ্ন ২৬: আমি ভুল ছবি ও ভুল স্বাক্ষর আপলোড করে ফেলেছি, সেক্ষেত্রে আমার করনীয় কি?

উত্তরঃ ১৬ জুন, ২০২২ রাত ১১:৫৯ টা মিনিটের মধ্যে জরুরী যোগাযোগ নম্বরে যোগাযোগ করুন। সঠিক ছবি, স্বাক্ষর, SSC/HSC Transcript ও Contact Number দিয়ে [email protected] ঠিকানায় ইমেইল করুন।

প্রশ্ন ২৭: প্রশ্নপত্রের ভাষা “বাংলা” অথবা “ইংরেজি” এর অর্থ কি?

উত্তর: প্রশ্নপত্রের ভাষা “বাংলা” থাকলে আপনাকে পরীক্ষার হলে যে প্রশ্নপত্রটি দেয়া হবে, তা বাংলা ভাষায় মুদ্রিত থাকবে। আর “ইংরেজি” থাকলে আপনাকে পরীক্ষার হলে যে প্রশ্নপত্রটি দেয়া হবে, তা ইংরেজি ভাষায় মুদ্রিত থাকবে। ধন্যবাদ!

প্রশ্ন ২৮: ফি প্রদানের পর যদি আমি প্রশ্ন পত্রের ভাষা পরিবর্তন করতে চাই সেক্ষেত্রে আমার করনীয় কি?

উত্তর: আবেদনকারী যে মোবাইল নম্বর ব্যবহার করে আবেদন করেছেন, শুধুমাত্র সেই মোবাইল নম্বর থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি সংক্রান্ত ওয়েবসাইটে Login করে প্রশ্ন “সহায়তা কেন্দ্র” বাটনে ক্লিক করে প্রশ্ন পত্রের ভাষা পরিবর্তনের আবেদন করুন।

প্রশ্ন ২৯: প্রবেশপত্র ডাউনলোড করতে পারছি না। এক্ষেত্রে করণীয় কি ?

উত্তরঃ ২৩ জুন, ২০২২ থেকে প্রবেশপত্র ডাউনলোড করা যাবে।

প্রশ্ন ৩০: আমি কবে প্রবেশপত্র ডাউনলোড করতে পারবো?

উত্তরঃ ২৩ জুন, ২০২২ থেকে প্রবেশপত্র ডাউনলোড করা যাবে।

প্রশ্ন ৩১: আমি একটি ইউনিটের জন্য নির্ধারিত আবেদন ফি আংশিকভাবে প্রদান করতে পারবো কি না?

উত্তর: না। যে কোন ইউনিটে আবেদনের ক্ষেত্রে নির্ধারিত আবেদন ফি একবারে পরিশোধ করতে হবে। কোন আংশিক পরিশোধ গ্রহণযোগ্য নয়। একাউন্টের ধরনঃ শুধুমাত্র পার্সনাল একাউন্ট।

প্রশ্ন ৩২: একাধিক ইউনিটে আবেদনের জন্য কি একাধিক প্রোফাইল তৈরি করতে হবে?

উত্তরঃ না। একাধিক ইউনিটে আবেদনের জন্য একটি প্রোফাইলই যথেষ্ট।

প্রশ্ন ৩৩: আমি কোটায় আবেদন করতে চাই, কিন্তু পারছি না কেন?

উত্তর: ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে পাসমার্ক পেলেই কেবল কোটায় আবেদন করা যাবে। আবেদন প্রক্রিয়া পরবর্তীতে জানানো হবে। ধন্যবাদ।